অক্টোবরেও দেশে ফিরছেন না খালেদা

প্রকাশিত

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : চিকিৎসা শেষে পনের দিনের মধ্যেই ফেরার কথা থাকলেও মাস পেরিয়ে গেলেও দেশে ফিরছেন না বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। দেশে ফেরার জন্য একাধিকবার তারিখ র্নিধারণ করে বার বার তার সিডিউল পরিবর্তন করা হচ্ছে।

লন্ডন বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, নভেম্বর মাসের ২ তারিখ খালেদা জিয়ার দেশে ফেরার নতুন করে তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। এর আগে ২০ অক্টোবর দেশে আসার কথা থাকলেও ঐ তারিখে আসছেন না তিনি।

এদিকে ১৫ সেপ্টেম্বর দেশে ত্যাগের সময় পনের দিন পর ফিরে আসার কথা বলা হয়েছিল। পরবর্তীতে ৩ অক্টোবর দেশে আসবেন বলে জানানো হয়। এরপর ৮ অক্টোবর, ১৬ অক্টোবর এবং সর্বশেষ ২০ অক্টোবর দেশে ফিরতে পারেন বলে জানানাে হয়েছিল।

তবে চলতি মাসেও (অক্টোবর) খালেদা জিয়া দেশে ফিরছেন না বলে চূড়ান্ত করা হয়েছে। বর্তমানে চিকিৎসা শেষে তারেক রহমানের বাসায় পূর্ণ বিশ্র্রামে রয়েছেন তিনি। বিশ্রামের পাশাপাশি পরিবার পরিজনকে সময় দিচ্ছেন বেগম জিয়া।

এদিকে দেশে ফিরে না আসলেও ২৭ নভেম্বর লন্ডনে একটি সভাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন তিনি। সেই সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন দলটির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

জানা গেছে, সমাবেশ শেষে ২ নভেম্বর দেশে ফেরার কথা রয়েছে তাঁর। এ উদ্দেশে এমিরেটস এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটের টিকিটও রোববার বুকিং দেয়া হয়েছে। তবে সেই তারিখেও তিনি দেশে ফিরছেন কিনা তা নিয়ে সংশয় রয়ে গেছে।

অন্য এক সূত্রে জানা গেছে, গত ১৫ সেপ্টেম্বর লন্ডন সফরের সময় বিএনপি চেয়ারপারসনের সঙ্গে ছিলেন তার দুই উপদেষ্টা আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও আবদুল আওয়াল মিন্টু। এ সময় মিন্টুর ছেলে তাবিথ আউয়ালও সঙ্গে যান।

মিন্টু গত সপ্তাহে দেশে ফিরলেও তাবিথ এখনো লন্ডনেই অবস্থান করছেন। তারা ইতিমধ্যে তারেক রহমানের বাসায় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে একাধিক বার দেখা করেছেন বলে সূত্রটি জানিয়েছে।

এছাড়া যুক্তরাষ্ট্র থেকে লন্ডন এসে কয়েকদিন অবস্থান করেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকাও। তিনি একাধিক বার বৈঠক করে গেছেন খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের সঙ্গে। দল ও দেশের সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনাও করেছেন তারা।

এদিকে লন্ডনে ছেলের বাসায় ওঠার পর থেকে খালেদা জিয়ার সমস্ত দেখাশোনা করছেন তারেক রহমান। আর তার চিকিৎসার যাবতীয় তদারকি করছেন পুত্রবধূ ডা. জোবায়দা রহমান। তিন নাতনি আর স্বজনদের নিয়ে সময় কাটছে খালেদা জিয়ার। একচোখে অপারেশন সম্পন্ন হলেও আরেক চোখে বাকি রয়েছে। সেটিও করাতে হবে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী।

পরবর্তীতে পায়ের চিকিৎসাও করাতে পারেন তিনি। আর সাংগঠনিকসহ যাবতীয় কাজে তারেক রহমানকে সহযোগিতা করছেন যুক্তরাজ্য বিএনপি সভাপতি এম এ মালেক ও সাধারণ সম্পাদক কয়সর এম আহমেদ।

তবে খালেদা জিয়ার দেশে ফেরার বিষয়ে বিএনপির ভা্রপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম জানিয়েছেন চিকিৎসা শেষ করেই দেশে ফিরবেন চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

অন্যদিকে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, দ্রুতই দেশে ফিরবেন খালেদা জিয়া।

তবে কবে নাগাদ খালেদা জিয়া দেশে ফিরছেন সে বিষয়ে কেউ কোনো সুনির্দিষ্ট তথ্য দেননি।

শেয়ার করুন