আবারো বর্ণবাদী আক্রমণের শিকার আর্চার

প্রকাশিত

মুক্তমন ডেস্কঃ বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনে উত্তাল সারাবিশ্ব। এরমধ্যেও থেমে নেই বর্ণবাদী আক্রমণ। গত ১৩ই জুলাই ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের দল ক্রিস্টাল প্যালেসের আইভরিয়ান ফরোয়ার্ড উইলফ্রেড জাহাকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বর্ণবাদী বার্তা পাঠিয়ে গ্রেফতার হন ১২ বছর বয়সী এক ইংলিশ কিশোর। সেটার রেশ না কাটতেই জফরা আর্চার জানালেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বর্ণবাদী আক্রমণের শিকার হয়েছেন তিনি।

গতবছরের নভেম্বরে নিউজিল্যান্ড সফরে একজন কিউই দর্শকের মাধ্যমে প্রথমবার বর্ণবাদী আচরণের শিকার হন ২৩ বছর বয়সী এই পেসার। এরপর চলতি বছরের মার্চে বার্বাডোজে জন্ম নেয়া এই পেসার ইনস্টাগ্রামে কয়েকটি স্ক্রিনশট পোস্ট করেন। সেই স্ত্রিনশটে ছিল আর্চারকে উদ্দেশ্য করে পাঠানো বর্ণবাদী বার্তা। আগের দু’বারের মতো এবারো বর্ণবাদের বিরুদ্ধে নিজের কঠোর অবস্থান জানালেন তিনি।

স্বাস্থ্যবিধি ভঙ্গের দায়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে দল থেকে বাদ পড়েন জফরা আর্চার।

নিয়ম অনুযায়ী ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের একটি হোটেলে ৫ দিন আইসোলেশনে ছিলেন তিনি। ওই সময়টাতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শিকার হন বর্ণবাদী আচরণের। বৃটিশ দৈনিক ডেইলি মেইলে লেখা কলামে আর্চার লিখেছেন, ‘গত কয়েকদিনে ইনস্টাগ্রামে কিছু বিষয়ের মুখোমুখি হতে হয়েছে। সেগুলো স্পষ্টভাবেই বর্ণবাদ বিরোধী।

আমি মনে করি, এখন সময় এসেছে এটার ইতি টানার। আমি একটা ভুল করেছি। মানুষ তো ভুল করতেই পারে। এজন্য সবার কাছে ক্ষমাও চেয়েছি। আমি সব প্রক্রিয়া মেনে ইসিবির কাছে অভিযোগ করেছি। ক্রিস্টাল প্যালেসের ফুটবলার উইলফ্রেড জাহার সঙ্গে বর্ণবাদী আচরণ ঘটার পর থেকেই আমি ঠিক করেছিলাম, এটার লাগাম টানা উচিত। সেজন্যই ইসিবির কাছে অভিযোগ করেছি। আমার কিছু সময় মনে হয়, এই পৃথিবীটা সবার জন্য সবসময় ভালো যায় না। এখানে সবার সমঅধিকার নেই এবং এটাই সত্যি। আমি গত কয়েকদিনে বেশকিছু সামাজিক যোগামাধ্যম অনুসরণ করা বন্ধ করে দিয়েছি।

আমি ওসব জায়গায় আর ফিরতেও চাই না। কেননা ওখানে অপ্রয়োজনীয় নানা রকম বিষয় আলোচিত হয়। আপনি আবার দুই উইকেট কিংবা ভাল একটা স্পেল করুন। দেখবেন জনপ্রিয়তার গাড়ি তখন এমনিতেই উচ্চগতিতে দৌড়াবে। অদ্ভূত এই পৃথিবীর এমন আচরণ সত্যিই পাগলাটে।’

শেয়ার করুন