ট্রাইব্যুনালের চিফ প্রসিকিউটরকে সাকা-মুজাহিদের নোটিশ

প্রকাশিত

আদালত প্রতিবেদক : মানবতাবিরোধী অপরাধে দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরী ও জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের চিফ প্রসিকিউটর গোলাম আরিফ টিপুকে নোটিশ দেয়া হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের দেয়া রায়ের বিরুদ্ধে রায় পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদন করা হবে জানিয়ে অপরাধীদের আইনজীবীরা বৃহস্পতিবার এই নোটিশ দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

মুজাহিদের আইনজীবী মো. শিশির মনির জানান, নিয়ম অনুযায়ী রিভিউ আবেদন করার আগে রাষ্ট্রপক্ষকে নোটিশ পাঠাতে হয়। আমরা সেই প্রক্রিয়া অনুসরণ করে বৃহস্পতিবার বিকেলে মুজাহিদের রায়ের রিভিউ করা হবে মর্মে চিফ প্রসিকিউটরকে জানিয়েছি।

অপরদিকে, বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর আইনজীবী হুজ্জাতুল ইসলাম আল ফেসানী জানান, সাকার রায়ের রিভিউ করা হবে মর্মে বৃহস্পতিবার দুপুরে চিফ প্রসিকিউটরকে নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বেলা ৩টার দিকে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের জন্য লাল কাপড়ে মোড়িয়ে মৃত্যু পরোয়ানা জারি করেছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। এরআগে রেজিস্ট্রার শহীদুল আলম ঝিনুক মৃত্যু পরোয়ানায় সই করে তা পাঠানোর ব্যবস্থা করেন। পরে ট্রাইব্যুনালের কর্মীরা মাইক্রোবাসে করে তা পৌঁছে দেন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেল সুপারের কাছে।

এই পরোয়ানার অনুলিপি পাঠানো হয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছেও। আর এর মধ্য দিয়ে শুরু হল দণ্ড কার্যকরের আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া। তবে রিভিউ আবেদন করার পর দণ্ড কার্যকরের প্রক্রিয়া স্বয়ংক্রিয়ভাবে স্থগিত হয়ে যাবে বলে জানান রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

এর আগে পুনর্গঠিত ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. আনোয়ারুল হকের কাছে রায়ের কপির অনুলিপি পাঠানো হয়। ট্রাইব্যুনালের অন্য দুই বিচারপতি হলেন মো. শাহিনুর ইসলাম ও বিচারপতি মোহাম্মদ সোহরাওয়ার্দী।

এদিকে, জামায়াত নেতা মুজাহিদ বর্তমানে কেন্দ্রীয় কারাগারে অবস্থান করছেন। মুজাহিদের বয়স ৬৭ বছর। অন্যদিকে, বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী আছেন কাশিমপুর কারাগারে। সাকার বয়স ৬৬ বছর। পরোয়ানা হাতে পাওয়ার পর কারা কর্মকর্তারা দুই ফাঁসির আসামিকে তা পড়ে শোনান বলে জানা গেছে।

শেয়ার করুন