ধর্মের নামে হানাহানি ঠিক নয়ঃ প্রধান বিচারপতি

প্রকাশিত

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেছেন, আমি সত্যিই আপ্লুত ও বিব্রত। শ্রী শ্রী কৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উৎসব উদযাপন উপলক্ষে আন্তর্জাতিক ধর্ম মহাসম্মেলনে উপস্থিত হতে পেরে আমি আপ্লুত। একই সঙ্গে বিব্রত এই ভেবে যে এমন একটা অনুষ্ঠানে জনসম্মুখে আমি কিছু বলতে পারছি না।

নগরীর জে এম সেন হল প্রাঙ্গণে শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে জাতীয় শ্রীশ্রী জন্মাষ্টমী উৎসব উদযাপন পরিষদ, চট্টগ্রাম আয়োজিত আন্তর্জাতিক ধর্ম মহাসম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।

প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আমি কোনো ধর্ম, বর্ণ কিংবা গোষ্ঠীর নই। আমি প্রধান বিচারপতি হিসেবে সমগ্র বাঙালী ও বাংলাদেশের। তাই এমন একটা ধর্ম মহাসম্মেলনে বেশি কিছু বলতে যাওয়া আমার পক্ষে উচিৎ হবে না। তবে ধর্মের নামে হানাহানি ঠিক নয়। এই ধর্ম প্রতিষ্ঠা ও হানাহানি রোধে একদিন শ্রী কৃষ্ণ পৃথিবীতে অবতীর্ণ হয়েছিলেন।’

সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেন, ‘আমরা স্বাধীনতা যুদ্ধ করেছিলাম বাঙালী হিসেবে। ধর্মনিরপেক্ষতা নীতিতে সবাই আমরা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলাম জাতি তথা দেশকে স্বাধীন করার জন্য। সে কারণে খুব স্বল্প সময়ের মধ্যে দেশ স্বাধীন হয়েছে এবং একটা সংবিধান রচিত হয়েছে। বিশ্বের ইতিহাসে সত্যিই এমন ঘটনা বিরল। আমি বিশ্বাস করি ২১তম প্রধান বিচারপতি হিসেবে মহান স্বাধীনতার স্বপ্ন বাস্তবায়িত হয়েছে। স্বাধীনতার স্বপ্নপুরুষ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তা বাস্তবায়ন করেছেন বলে তার প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।’

তিনি বলেন, ‘তবে ভুলে গেলে চলবে না যে দেশে এখনো স্বাধীনতা বিরোধীরা তৎপর। যে কোনো মুহূর্তে তাদের ইচ্ছা পূরণে ঝাঁপিয়ে পড়তে পারে। বিচ্ছিন্ন অনেক ঘটনাই তার সাক্ষী। স্বাধীনতার সম্মান সমোন্নত রেখে শহীদদের কথা স্মরণ করে দেশের উন্নয়নে সবাইকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। তবে শহীদদের আত্মা শান্তি পাবে।’

এ্যাডভোকেট চন্দন তালুকদারের সঞ্চালনায় জন্মাষ্টমী উৎসব উদযাপন পরিষদের সভাপতি কাজল কান্তি দত্তের সভাপতিত্বে এ সময় আরও বক্তব্য রাখেন- বিশেষ অতিথি বাশঁখালী ঋষীধাম ও নগরীর তুলশী ধামের মহন্ত স্বামী সুরেশ্বরানন্দ পুরী মহারাজ, অনুষ্ঠানের উদ্বোধক রামকৃষ্ণ সেবাশ্রমের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ স্বামী শ্রী শক্তিনাথনজী, চট্টগ্রাম আদালতের জেলা ওদায়রা জজ নুরুল হুদা, রাউজান পৌরসভা মেয়র দেবাশীষ পালিত, সুপ্রীম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল আমিনুল ইসলাম, প্রধান অতিথির সচিব আনিসুর রহমান, ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক দীলিপ কুমার আগরওয়াল, এ্যাডভোকেট তপন কুমার দাশ, কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ জসিম উদ্দিন, রবি শঙ্কর আচার্য প্রমুখ।

শেয়ার করুন