প্রখ্যাত ও জনপ্রিয় কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক

মুক্তমন রিপোর্ট, ঢাকা: কবিতার রাজপুত্র হয়ে ওঠার গল্প // প্রসঙ্গ কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক ও তাঁর কবিতা নির্মাণ // লিখছেন ডঃ-আদিত্য বসু ( সাংবাদিক প্রবন্ধিক USA ) *********************************************যে মানুষটা-কে নিয়ে আজ আমি কলম ধরেছি , তিনি এই মুহূর্তে কবিতার সাম্রাজ্যকে কলম ও সাদা পৃষ্ঠা দিয়ে শাসন করে চলেছেন ! আজ্ঞে হ্যাঁ , তিনি এই সময়কার কবিতার রাজপুত্র এবং আমাদের সকলের প্রাণের ও ভালোবাসার কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক । ৯০-দশকের শুরু কিম্বা ৮০- দশকের শেষ , এই যে সময়টা বলা যেতে পারে কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিকের কবিতার জগতে একটা ব্রেক ! তখন আমি পাকাপোক্ত ভাবে বিদেশে থাকতাম না । একটি বিশেষ দৈনিক সংবাদ পত্রিকায় কলকাতায় স্থায়ী সাংবাদিকতার চাকরী করতাম । ওই কাগজে ওই সময় রবিবারের পাতায় নিয়মিত কবিতা লিখতেন কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক । আমি সেই পত্রিকার বিভাগীও সম্পাদক ও কবিতা নির্বাচক ছিলাম । যাই হোক , ঠিক তখন থেকে না হলেও কবি~বিদ্যুৎ এর সাথে আমার পরিচয় ওই ৯০-দশকের কিছু আগেই বলা যায় । কি বলবো , ভীষণ ঠাণ্ডা প্রকৃতির মানুষ আমার এই প্রিয় কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক । সপ্তাহে একদিন অর্থাৎ বুধবার করে তিনি আসতেন পত্রিকা দপ্তরে । আসার সময় এক ঠোঙা তেলেভাজা ও মুড়ি কিনে নিয়ে আসতেন । দুজনে মিলে কাঁচা লঙ্কা আর তেলেভাজা-মুড়ি সঙ্গে বড় পেয়ালায় গরম গরম ধোঁয়া ওঠা চা , এই ছিল বুধবারের দুজনের দুপুর । সেই হুগলী জেলার শ্রীরামপুর থেকে ট্রেনে চেপে নিয়ম করে আসতেন একমাত্র আমার সাথে গল্প করতে এই সময়কার প্রিয় কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক । নতুন কিছু লিখলেই তিনি এই অধম-কে না শুনিয়ে পারতেন না । এমন-কি মজার মজার ছড়া আমাকে পাঠ করে শোনাতেন ! হঠাৎ করে আমেরিকার একটি বিশেষ ইংরাজি দৈনিক সংবাদ পত্রিকায় চাকরী নিয়ে চলে এলাম সাত সমুদ্র তেরো নদী পেরিয়ে USA~তে । দেখা সাক্ষাৎ বন্ধ হয়ে গেল কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিকের সাথে ! এরপর বেশ কয়েক বছর পেরিয়ে গেলো ! ওখানে বসে বিভিন্ন বাংলা পত্র-পত্রিকায় আমাদের প্রিয় কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিকের কবিতা পড়তে লাগলাম । ইতিমধ্যে ২০০০ সাল এলো ! কবিতার এই জগতে হাজার পরিবর্তন এলো ! এই পরিবর্তনের সময়ে কত কবি ও লেখক এলো আর গেলো ! কিন্তু আন্তর্জাতিক বাজারে নামডাক হোলো এবং জনপ্রিয়তা পেলেন কবিতার রাজপুত্র এবং আমাদের মনের মানুষ কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক । এই অহংকারহীন মানুষটি-কে নিয়ে আমার মতো অনেকেই লিখছেন ও লিখবেন , তবু একটা কথা না বোলে পারছি না ; আমি যে ভাবে কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিকের সাথে মিশেছি সেটা বলে বোঝানো যাবে না । একটা সময় কলকাতার পথে~পথে সম্পাদক ও প্রকাশকদের দরজায় দরজায় কবিতার পাণ্ডুলিপি নিয়ে ঘুরেছেন আজকের এই জনপ্রিয় কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক ! সত্যি অর্থে সেই সময় কোন সম্পাদক ও প্রকাশক কবি~ বিদ্যুৎ ভৌমিককে কোন ভাবে সাদরে গ্রহণ করেননি , এমন-কি তাঁর কবিতাকে সৌজন্যতার খাতিরে শোনেন-নি এবং পড়েন নি ! আমি কবি~বিদ্যুৎ -এর সাথে গল্পের ছলে সেই সময়কার তাঁর কবিতাকে নিয়ে অক্লান্ত পরিশ্রমের গল্প শুনেছি , এবং অনুধাবন করেছি একজন কবির কতোটা মেধা ও কবিতার প্রতি নিষ্ঠা-প্রেম ছিল বোলেই সেদিনের বিদ্যুৎ ভৌমিক আজকের জনপ্রিয় কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক হয়ে উঠতে পেরেছেন একমাত্র তাঁর নিজের চেষ্টায় ! এটাই কবি ও কবিতার জয় ! আজ বহু বছর কেটে গেছে সময়ের বহতা স্রোতে ! এখন এই মুহূর্তে বাংলা সাহিত্যের এমন কোন প্রথম শ্রেণীর পত্র-পত্রিকা নেই যে কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিকের কলম সেখানে কথা বলেনি ! আজ তাঁর সবকটা কাব্যগ্রন্থ বাজারে সর্বচ্চ বাজার নিয়েছে । আজ তাঁকে নিয়ে দেশ-বিদেশে চর্চা ও আলোচনা হয়েই চলেছে ! ভাবতে অবাক লাগে ! বাংলাদেশের কবিতাপ্রেমী পাঠক সমাজ কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক-এর কবিতাকে গ্রহণ করেছেন । এটাই কবির পুরষ্কার । আমার সমস্ত প্রেম~শ্রদ্ধা~অন্তরের অন্তঃস্থলের ভালোবাসা এই অহংকারশূন্য কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিকের প্রতি রইলো , এবং আগামী দিনে তাঁকে নিয়ে লেখার ইচ্ছা রইলো ।।