বেসিক ব্যাংকে অর্থ কেলেঙ্কারির ঘটনায় আরো ২৩ মামলা

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক : জালিয়াতি করে ঋণের নামে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বেসিক ব্যাংক থেকে ৮৪৩ কোটি ২৫ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে আরও ২৩ মামলা দায়ের করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মামলায় বিভিন্ন কোম্পানি, শিল্প প্রতিষ্ঠান, সরবরাহকারী ও সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের কর্মকর্তাসহ ১৮২ জনকে আসামি করা হয়েছে।

২৩ মামলার কোনোটিতেই ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান শেখ আবদুল হাই বাচ্চুকে আসামি করা হয়নি। এর আগে গত সোমবার বেসিক ব্যাংকে র্অথ কেলেঙ্কারির  ঘটনায় যে ১৮টি মামলা হয় তাতেও আবদুল হাই বাচ্চুকে আসামি করা হয়নি।

তবে মঙ্গলবার যে ২৩টি মামলা হয় তার বেশিরভাগেই বাচ্চুর মেয়াদে ব্যাংকের সাবেক এমডি কাজী ফখরুল ইসলামকে আসামি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুদকের উপপরিচালক মাহবুবুল আলম, উপসহকারী পরিচালক একেএম ফজলে হোসেন ও জয়নাল আবেদীন বাদী হয়ে রাজধানীর গুলশান, পল্টন ও মতিঝিল থানায় মামলাগুলো করেন। ২৩ মামলার ১৮২ জন আসামির মধ্যে অধিকাংশ ব্যক্তিকে একাধিক মামলায় আসামি করা হয়েছে।

বেসিক ব্যাংকে অর্থ কেলেঙ্কারির ঘটনায় মোট ৫৬ মামলা হওয়ার কথা রয়েছে। বাকি মামলাগুলো বুধবার হতে পারে বলে দুদক সূত্রে জানা গেছে।

এজাহার পর্যালোচনা করে জানা যায়, ব্যাংকের ৪৫৫ কোটি ৫৯ লাখ ৮৬ হাজার ১৯৭ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ৮০ জনকে আসামি করে মঙ্গলবার গুলশান থানায় ৯টি মামলা করা হয়। এর মধ্যে দুদকের উপপরিচালক মাহবুবুল আলম বাদী হয়ে দুটি ও উপসহকারী পরিচালক জয়নাল আবেদীন বাদী হয়ে ৭টি মামলা করেন।

একই দিনে মাহবুবুল আলম বাদী হয়ে আরও ১১২ কোটি ৬১ লাখ ৯৯ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মতিঝিল থানায় আরও চারটি মামলা করেন। এদিন উপসহকারী পরিচালক ফজলে হোসেন বাদী হয়ে ২৭৫ কোটি ৩ লাখ ৪৬ হাজার ৭০৫ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে পল্টন থানায় আরও ৮টি মামলা করেন।

এজাহারে ৮৪৩ কোটি ২৫ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়েছে-এআরএস ইন্টারন্যাশনাল, আমিরা শিপিং, এশিয়ান ফুড, এশিয়ান শিপিং বিডি, মেসার্স বি আলম শিপিং, খাদিজা অ্যান্ড সন্স, লাইফস্টাইল ফ্যাশন মেকার, মেসার্স সিলভার কম, তাহমিনা ডেনিমস, তাহমিনা নিটওয়্যার, ভাসাবি ফ্যাশন, ইমারেল্ড ওয়েল, রিলায়েন্স শিপিং, সৈয়দ রিয়েল এস্টেট, সিমেক্স লিমিটেড, আলী কন্সট্রাকশন, আহমেদ ওয়েল, সৈয়দ ট্রেডার্স, মেসার্স ডায়নামিক স্টোন, টেলিওয়েজ ইন্টারন্যাশনাল, এলআর ট্রেডিং, প্রপেল ইন্টারন্যাশনাল ও গুঞ্জন অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজের বিরুদ্ধে। এসব কোম্পানির চেয়ারম্যান ও এমডিকে মামলায় আসামি করা হয়েছে।

ব্যাংক কর্মকর্তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য আসামিরা হলেন-সাবেক এমডি ও সিইও কাজী ফখরুল ইসলাম, সাবেক জিএম এ মোনায়েম খান, ডিএমডি কনক কুমার পুরকায়স্থ, সাবেক জিএম মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, সাবেক ডিজিএম সিপার আহমেদ, উপব্যবস্থাপক এসএম জাহিদ হাসান, ডিএমডি ফজলুস সোবহান, জিএম খন্দকার শামীম হাসান, সিনিয়র সার্ভেয়ার জহিরুল ইসলাম, মতিঝিলের ব্যাংকের প্রধান শাখার সাবেক ইনচার্জ জয়নাল আবেদীন চৌধুরী, এজিএম আবদুস সবুর, ব্যাংকের সাবেক অপারেশন ব্যবস্থাপক সাবেক ডিজিএম মোজাম্মেল হোসেন, শান্তিনগর শাখার সাবেক শাখা প্রধান মোহাম্মদ আলী ওরফে মোহাম্মদ আলী চৌধুরী প্রমুখ।

শেয়ার করুন