যুক্তরাজ্যে আটকে পড়া ১১৪ বাংলাদেশী দেশে ফিরেছেন

প্রকাশিত

নিউজ ডেস্ক : সরকার কোভিড-১৯ মহামারীজনিত কারণে ফ্লাইট স্থগিত হওয়ায় যুক্তরাজ্যে আটকে থাকা ১১৪ জন বাংলাদেশীকে আজ একটি বিশেষ বিমান করে লন্ডন থেকে দেশে ফিরিয়ে এনেছে।

বিমানের উপ-মহাব্যবস্থাপক (পিআর) তাহেরা খোন্দোকার গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমাদের বিশেষ বিমানটি আজ সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে লন্ডন থেকে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে (এইচএসআইএ) অবতরণ করেছে।’

এদিকে, লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশন থেকে জারি করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ সরকারের বিশেষ বিমান বিজি-৪০৪১ রোববার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টা ৪৫ মিনিটে লন্ডন থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা করেছে। এতে বলা হয়, প্রত্যাবর্তনকারী যাত্রীদের বেশিরভাগই বাংলাদেশ থেকে আসা শিক্ষার্থী। যারা করোনা ভাইরাসের কারণে ফ্লাইট স্থগিত হওয়ায় যুক্তরাজ্যে আটকা পড়েছিলেন।

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের হাই কমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম হিথ্রো বিমানবন্দরে প্রত্যাবর্তনরত যাত্রীদের সঙ্গে দেখা করেছেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা অত্যন্ত বিনীতভাবে সন্তোষ প্রকাশ করছি যে, পবিত্র ঈদুল ফিতর উৎসবের আগেই যুক্তরাজ্যে আটকে থাকা বাংলাদেশী নাগরিকদের, বিশেষত শিক্ষার্থীদের, বাংলাদেশে তাদের পরিবারের সঙ্গে পুনরায় একত্রিত করতে পারলাম।’

এর আগে, লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশনের অনুরোধে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিশেষ ফ্লাইটটি বাংলাদেশ বিমান বাহিনী কল্যাণ ট্রাস্টের পক্ষ থেকে পরিচালনা করেছে।

লন্ডন হাই কমিশন ইতিমধ্যে সব যাত্রীকেই স্বাস্থ্য মূল্যায়নের ভিত্তিতে একটি স্বাস্থ্য সনদ সরবরাহ করেছে, যাতে তাদের কেবল হোম কোরেন্টাইনে থাকতে বলা হয়েছে।

বাংলাদেশ সরকারের সিদ্ধান্ত অনুসারে, বিমানবন্দরে আসার পরে বাংলাদেশীরা যদি সুস্থতার মেডিকেল সনদপত্র প্রদর্শন করতে ব্যর্থ হতেন, তাহলে সরকারের সিদ্ধান্ত অনুসারে তাদেরকে সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ (এএফডি)-এর অধীনে পরিচালিত ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টিনে প্রেরণ করা হতো।

বাংলাদেশ এখন ভারত, অস্ট্রেলিয়া, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর এবং মিয়ানমার, যুক্তরাষ্ট্র ও মালয়েশিয়ায় আটকে পড়া বাংলাদেশীদের শিগগিরই ফিরিয়ে আনার পরিকল্পনা করেছে।

করোনা ভাইরাসের কারণে বাংলাদেশ বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ গত ৫ মে টানা পঞ্চম বারের মতো বাড়িয়ে আগামী ১৬ মে পর্যন্ত করেছে। ফলে, এখন শুধু বিশেষ কিছু ফ্লাইট পরিচালিত হচ্ছে।

শেয়ার করুন