যুবককে গুলি করে হত্যা: পুলিশের দুই সদস্যসহ ৩ জন গ্রেফতার

মুক্তমন রিপোর্ট, সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের ভাটিয়ারীতে যুবককে গুলি করে হত্যার অভিযোগে এক এসআইসহ তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, সীতাকুণ্ড থানার এসআই নাজমুল ও তার সঙ্গে অভিযানে থাকা কনস্টেবল আবুল কাসেম ও আনসার সদস্য ইসমাইল। শুক্রবার সীতাকুণ্ড থানা পুলিশ গ্রেফতারকৃতদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করেন। এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে নিহত যুবকের ভাই দিদার এসআই নাজমুলসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন।
জানা গেছে, চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের ভাটিয়ারী ইউনিয়নের তেলিবাজার এলাকায় সাইফুল আলম নামে তরুণ নিহতের ঘটনায় পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) নাজমুল হুদা, কনস্টেবল আবুল কাসেম ও আনসার সদস্য ইসমাইল হোসেনকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সীতাকুণ্ড সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রেজাউর রহমান। এর আগে গত বৃহস্পতিবার রাতে নিহত সাইফুল আলমের ভাই দিদারুল আলম বাদী হয়ে সীতাকুণ্ড থানার এসআই নাজমুল হুদার নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও চারজন মিলে পাঁচজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন বলে জানান সীতাকুণ্ড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইফতেখার হাসান।
গত বুধবার রাতে সাদাপোশাকের পুলিশের একটি দল ওই এলাকায় গিয়ে দুই যুবককে ধরে আনার চেষ্টা করলে স্থানীয়রা বাধা দেয়। এ সময় এসআই নাজমুল হুদার গুলিতে সাইফুল আলম নিহত হয়েছে বলে মামলায় উল্লেখ করেছেন বাদী দিদারুল আলম।
দিদারুল আলম বলেন, মামলার এজাহারে উল্লেখ করেছেন, ঘটনার সময় তিনি ঘটনাস্থলে তিনি ছিলেন না। তবে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলে তিনি জেনেছেন ঘটনার দিন মো. ফারুক ও পারভেজ নামের দুই যুবককে ধরে আনার সময় স্থানীয় লোকজন পুলিশকে বাধা দেয়। একপর্যায়ে এসআই নাজমুল গুলি ছোড়ে। এতে সাইফুলকে খুব কাছ থেকে গুলি করে। ফলে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যায়। নাজমুলের সঙ্গে থাকা অন্য চারজনকে তারা চিনতে পারেননি।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আবদুল হালিমকে বলেন, তদন্ত কার্যক্রম শুরু করেছেন। গতকাল বিকেলে এসআই নাজমুল হুদাসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয় দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়।
সীতাকুণ্ড থানার ওসি মো. ইফতেখার হাসান জানান, বুধবার রাতে উপজেলার ভাটিয়ারী তেলিপাড়ায় তিনজনকে গুলিবিদ্ধ করার ঘটনায় উপস্থিতদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে নিহত সাইফুলের ভাই। তিনি আরও বলেন, বৃহস্পতিবার সকালেই এসআই নাজমুল, কনস্টেবল আবুল কাসেম ও আনসার ইসমাইলকে ক্লোজ করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।
প্রসঙ্গত, বুধবার সীতাকুণ্ডের ভাটিয়ারী তেলিবাজার এলাকা থেকে দুই নিরীহ যুবককে ধরে এসআই নাজমুল গাড়িতে তোলার চেষ্টা করলে এলাকাবাসী বাধা দেয়। এতে নাজমুল তাদের ওপর গুলি চালালে সাইফুলসহ তিনজন গুলিবিদ্ধ হন। পরে সাইফুল চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।