‘এবার দেখতে চাই বিএনপি নির্বাচনে আসে কিনা’

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিএনপি শুধু জাতীয় নির্বাচন বা উপনির্বাচন হলে সেখানে অংশ নেওয়া থেকে বিরত থাকছে। আর বাইরে বলে বেড়াচ্ছে নির্বাচন ঠিক হয়নি। উনারা ওই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন না। এবারে একটু দেখতে চাই। এবার তো (পৌরসভা নির্বাচন) দলীয় ভিত্তিতে নির্বাচন, নিজ নিজ মার্কা নিয়ে। এখন তারা নির্বাচনটা করে কী করে না— সেটা একটা দেখার বিষয় আছে।

প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবনে গণভবনে বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ ও সংসদীয় বোর্ডের সভার সূচনা বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।

তিনি বলেন, নির্বাচনে অংশগ্রহণ করলে আর তারা (বিএনপি) বলতে পারবে না, তারা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে না। দলীয় প্রতীক নিয়ে তো তারা করল? আর না করলে এটা তাদের দলের জন্য ক্ষতি। এখন তারা কোন পথে যাবে, এটা তাদের বিষয়। এটা আমাদের বিষয় না।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, একটা কথা মনে রাখতে হবে, তারা তো আসলে গণতন্ত্রের মধ্য দিয়ে জন্ম হয় নাই। বিএনপির জন্ম তো গণতন্ত্রের মধ্য দিয়ে না। এ কথা ভুললে চলবে না, জিয়াউর রহমান ক্ষমতা দখল করেছিল হত্যা, ক্যুয়ের মধ্য দিয়ে, রাজনীতির মধ্য দিয়ে না।

তিনি বলেন, জিয়ার ক্ষমতা দখল অবৈধ। সংবিধান লঙ্ঘন করেছে। আর্মি এ্যাক্ট লঙ্ঘন করেছে। নিজেকে নিজে রাষ্ট্রপতি ঘোষণা দিয়েছিল। একাধারে সেনাপ্রধান আবার রাষ্ট্রপতি। একই অঙ্গে দুই রূপ নিয়ে জিয়াউর রহমান ক্ষমতা দখল করেছিল, ঠিক যেমন আইয়ুব খান ক্ষমতা দখল করেছিল।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, পঞ্চম সংশোধনীতে এটা বৈধ করার চেষ্টা করেছিল, কিন্তু হাইকোর্ট রায় দিয়েছেন। হাইকোর্টের রায়ে এটা স্পষ্ট জিয়াউর রহমানের ক্ষমতা দখল অবৈধ, এরশাদের ক্ষমতা দখল অবৈধ। তাই পঞ্চম সংশোধনী আর সপ্তম সংশোধনী বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। এ জন্য জিয়াউর রহমানকে সাবেক রাষ্ট্রপতি বলা হলে হাইকোর্টের রায়কে লঙ্ঘন করা হবে।

পরে শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বৈঠকটি শুরু হয়। আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ ও সংসদীয় বোর্ডের সদস্যরা উপস্থিত রয়েছেন।