আবারো চলন্ত বাসে গণধর্ষণের অভিযোগ

ডেস্ক : ঢাকার অদূরে ধামরাইয়ে এক নারী পোশাক শ্রমিককে চলন্ত বাসে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় জড়িত অভিযোগে বাসের চালক ও চালকের সহকারীসহ মোট সাতজনকে আটক করেছে পুলিশ।

গতকাল রবিবার রাত ১২টার দিকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে ধামরাইয়ের কচমচ এলাকা থেকে চলন্ত বাসটি থামিয়ে ওই নারী পোশাক শ্রমিককে উদ্ধার ও অভিযুক্তদের আটক করা হয়। আটকদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়েরের পর রিমান্ড আবেদন করে আজ সোমবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ধামরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মলয় সাহা জানান, রবিবার রাতে কারখানায় কাজ শেষে ধামরাইয়ের ইসলামপুর থেকে একটি যাত্রীবাহী বাসে ওঠেন ওই নারী পোশাক শ্রমিক। বাসটি ধামরাইয়ের কালামপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় পৌঁছালে পাঁচজন ব্যতীত সব যাত্রী নেমে যায়। এরপর বাসের চালকের সহকারী বাসের দরজা বন্ধ করে দেয় এবং চালক বাসটি মহাসড়কে উদ্দ্যেশবিহীনভাবে চালাতে শুরু করে।

পরে ওই পাঁচ যাত্রীসহ বাসে থাকা অন্যরা ওই নারীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এ সময় ওই নারীর চিৎকার শুনে  আশপাশের লোকজন বিষয়টি বুঝতে পেরে ধামরাই থানা পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ বাসটি ধাওয়া করে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের কচমচ এলাকা থেকে বাসটি  আটক করে। পরে ওই নারীকে উদ্ধার এবং যাত্রীবেশে চালকের সহযোগী ও পাঁচজনসহ মোট সাতজনকে আটক করে।

আটক পাঁচজনের নাম জানা গেছে। এরা হলো বাসের চালক বাবু, হেলপার বলরাম ও ধর্ষণকারী মকবুল, সোহেল ও আজিজুল।