আটকে পড়া হজযাত্রীদের বিশেষ ফ্লাইট আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক : ভিসা জটিলতায় দুর্ভোগে পড়া সরকারি ব্যবস্থাপনার ২১৫ জন হজযাত্রী আজ শুক্রবার বিমানের একটি বিশেষ ফ্লাইটে সৌদি আরব যাচ্ছেন। এদিকে, ভিসা জটিলতার সমাধান হলেও নতুন করে বারকোড ভিসা নিয়ে জটিলতা চলছে।

সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৫ হাজার ৭৩৮ জন ২১৫ হজযাত্রী সৌদি আরব গেছেন। এরমধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ২ হাজার ২১৮ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৩ হাজার ৫২০ জন।

বিমানবন্দর আশকোনাস্থ হজ অফিস সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, এবার বাংলাদেশ থেকে ১ লাখ ১ হাজার ৭৫৮ জনের হজ পালনের কথা রয়েছে। তাদের মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় যাবেন ২ হাজার ৭০০ জন। এদের মধ্যে গতকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সৌদি দূতাবাস থেকে ভিসার জন্য ডিও ই্যসু করা হয়েছে ৫৭ হাজার ১৪৭ জনের এবং সৌদি দূতাবাস থেকে ভিসা পাওয়া গেছে ৪৬ হাজার ৪৩০ জনের।

ভিসা জটিলতার কারণে হজ ফ্লাইট শুরুর দিন গত ১৬ আগস্ট নির্ধারিত ফ্লাইট মিস করা সরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রী গত চার দিনে চরম ভোগান্তিতে পড়ে। এসব যাত্রীদের মধ্যে থেকে ২১৫ জন শুক্রবার বিমানের বিশেষ ফ্লাইটে সৌদি আরব যাচ্ছেন। আর বাকি হজযাত্রীদের জন্য আগামী ২৬ আগস্ট আরেকটি বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনা করবে বিমান। এসব হজযাত্রী আশকোনাস্থ হজ অফিসে যাবতীয় প্রস্তুতি গ্রহণ করেও ভিসা না পাওয়ায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের নির্ধারিত ফ্লাইটে সৌদি আরবে যেতে পারেননি।

বিমানের আশকোনা হজ অফিসের পরিচালক ড. আবু সালেহ্ মোস্তফা কামাল বলেন, ভিসা সংক্রান্ত যে জটিলতা ছিল সৌদি দূতাবাসের সহযোগিতায় তা কেটে গেছে। যেসব যাত্রীরা এর আগে ফ্লাইট মিস করেছেন তাদেরকে পরবর্তী ফ্লাইটে ভাগ ভাগ করে পাঠানো হচ্ছে। এখন আর কোনো সমস্যা নেই।

তিনি আরও বলেন, শুক্রবার বিমানের একটি বিশেষ ফ্লাইটে ২১৫ জন হজযাত্রীকে সৌদি আরব পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এদিকে বারকোড ভিসা নিয়ে নতুন করে জটিলতা শুরু হয়েছে। মোয়াল্লেম ফি-১০০ এ ওপরে হলে বারকোড ভিসা দেয়া হয়। একশ জনের নিচে হলে বারকোড ভিসা হচ্ছে না। একারণে অনেক এজেন্সি সমস্যায় পড়েছে। এ জটিলতার বিষয়টি সুরাহা করতে বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এজেন্সির প্রতিনিধি ও হাব নেতাদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা। এতে কোটা বঞ্চিতদের অধীনে থাকা হজযাত্রী পাঠানোর বিষয়ে আলোচনা হয়।

বাংলাদেশ থেকে হজ যাত্রীদের নিয়ে সৌদি আরব গমনের শেষ ফ্লাইট হচ্ছে ২০ সেপ্টেম্বর এবং সৌদি আরব থেকে ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে ২২ সেপ্টেম্বর।