উট কোরবানি দেওয়া যাবে না সৌদিতে

প্রকাশিত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : আসন্ন ঈদ-উল-আযহায় সৌদি আরবে উট জবাইয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। মার্স ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এই নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে বলে আরবনিউজের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ফয়সাল আল-যাহরানি জানান, শুধু ঈদ-উল-আযহার সময়ে এই নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে। মক্কায় বসবাসরত মায়ানমারের জনগোষ্ঠীও এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকবে; ঐতিহ্যের অংশ হিসেবে তারা উট কোরবানি দেয়। এখন তাদেরকেও দুম্বা কোরবানি দিতে হবে।

এদিকে মদিনার উহুদ পাহাড়ের পুনর্মিলনী পরিষদের কর্মকর্তা আব্দুল রহমান আব্দুল করিম জানিয়েছেন, এই নিষেধাজ্ঞা সম্পর্কে তাদেরকে আনুষ্ঠানিকভাবে এখনও কিছু জানানো হয়নি।তিনি জানান, হজযাত্রীদের মার্স ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রক্ষা করতে উট কোরবানির নিষেধাজ্ঞা দিয়ে ফরমান জারি করেছেন গ্র্যান্ড মুফতি শেখ আবদুল আজিজ আল-আশিক। সেইসঙ্গে উটের পরিবর্তে গরু বা ভেড়া কোরবানির জন্য বলেছেন তিনি।

তিনি বলেন, উট দিয়ে কোরবানি দিতে সৌদিতে বসবাসরত মায়ানমারের জনগণ প্রতি বছরই অর্থ সংগ্রহ করেন। কোরবানি পশুর মাংস সবার সঙ্গে ভাগাভাগি করেন তারা।

তিনি আরও বলেন, এখন পর্যন্ত উট কোরবানিতে নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানানো হয়নি। যদিও মার্স ভাইরাসের অনেক উট ব্যবসায়ী বর্তমানে উট কেনা-বেচা বন্ধ রেখেছেন। এর পরিবর্তে ভেড়া এবং গরু বিক্রি করছেন তারা।

সম্প্রতি সৌদি আরবের কৃষি মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, দেশটির ২ লাখ ৩৩ হাজার উটের মধ্যে মার্স ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৭৭০০টি; যা মোট উটের ৩ দশমিক ৩ শতাংশ।

প্রসঙ্গত, ২০১২ সালে সৌদি আরবে প্রথমবারের মতো মার্স ভাইরাসের সংক্রমণ হয়; যা উটের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এ পর্যন্ত এই ভাইরাসে ১২২৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে ৫২১ জনের মৃত্যু হয়েছে; ৬৩৩ জন সুস্থ হয়েছেন এবং চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৭১ জন। গত চার দিনে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৬ জন।

শেয়ার করুন