ওয়ার্ল্ড ইকনোমিক ফোরামের সূচকে এগিয়েছে বাংলাদেশ

প্রকাশিত

বাণিজ্য ডেস্ক : ওয়ার্ল্ড ইকনোমিক ফোরামের প্রতিযোগিতামূলক সূচকে দুই ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ। মোট ৩ দশমিক ৭৬ পয়েন্ট পেয়ে বাংলাদেশ ১০৯ থেকে ১০৭-এ উঠে এসেছে।  ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম বিশ্বের ১৪০টি দেশের উৎপাদনশীলতার ওপর ভিত্তি করে ২০১৫-২০১৬ সালের জন্য এ তালিকা প্রকাশ করেছে। মোট ১১৩টি বিষয়কে বিবেচনা করে এ সূচক তৈরি করা হয়েছে। সূত্র ব্লুমবার্গ।

প্রতিযোগিতামূলক সূচকে সংশ্লিষ্ট দেশের অবকাঠামো, নতুন রীতি এবং সামস্টিক অর্থনীতির পরিবেশের বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত থাকে। প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থা, নীতিসহায়তা এবং যে সব বিষয়গুলোর অর্থনীতির উৎপাদনশীলতার বিষয়টি নির্ধারণ করে এবং যার মাধ্যমে একটি দেশের সম্ভাবনার বিষয়টি সম্পর্কে সম্যক ধারণা তৈরি করা যায়, সেটিকে প্রতিযোগিতামূলক হিসাবে সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে।

প্রকাশিত তালিকা অনুযায়ী, প্রতিযোগিতামূলক সূচকে সবচেয়ে বড় ধরনের অগ্রগতি হয়েছে নেদারল্যান্ডসের। ৫ দশমিক ৫০ পয়েন্ট পেয়ে ৮নং অবস্থান থেকে ৫নং এ উঠে এসেছে নেদারল্যান্ডস। তবে বড় ধরনের অবনমন হয়েছে ব্রিকসভুক্ত ব্রাজিলের। গতবছরের তালিকায় ৫৭ নং থাকা ব্রাজিল এবছর ১৮ ধাপ পিছিয়ে তালিকার ৭৫ নম্বরে গিয়ে ঠেকেছে। ব্রিকসভুক্ত অন্যতম প্রভাবশালী দেশ ভারতের বড় ধরনের উত্থান হয়েছে। ৪ দশমিক ৩১ পয়েন্ট পেয়ে ৭১ থেকে ৫৫ এ উঠে এসেছে ভারত। ৩ দশমিক ৪৫ পয়েন্ট পেয়ে তালিকার ১২৬ নম্বরে রয়েছে পাকিস্তান। এর আগে পাকিস্তানের অবস্থান ছিল ১২৯ নম্বরে। সার্কভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে পাকিস্তানের অবস্থান সর্বনিম্নে। প্রতিবেশী দেশ মিয়ানমার ৩ দশমিক ৩২ পয়েন্ট পেয়ে তালিকার ১৩১ নম্বরে রয়েছে। এর আগে দেশটির অবস্থান ছিল ১৩৪ নম্বরে। ২ দশমিক ৮৪ পয়েন্ট পেয়ে তালিকার সর্বনিম্নে রয়েছে গায়না।

আর ৫ দশমিক ৭৬ পয়েন্টে নিয়ে শীর্ষে রয়েছে সুইজারল্যান্ড। ৫ দশমিক ৬৮ ও ৫ দশমিক ৬১ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে যথাক্রমে সিঙ্গাপুর ও যুক্তরাষ্ট্র। এর আগেও এ তিনটি দেশ তালিকার শীর্ষে ছিল।

শেয়ার করুন