জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে চীন-যুক্তরাষ্ট্র উত্তেজনা

প্রকাশিত

মুক্তনম ডেস্ক:জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বিশ্বে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার জন্য চীনকে দায়ী করে বক্তব্য দেয়ার পর যুক্তরাষ্ট্র আর চীনের মধ্যে চলমান উত্তেজনায় নতুনমাত্রা যোগ হয়েছে।

বিশ্বে মহামারী ছড়িয়ে পড়ার জন্য চীনের জবাবদিহি চেয়েছেন ট্রাম্প। চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং তার বক্তব্যে বলেছেন, কোনো দেশের সঙ্গে স্নায়ুযুদ্ধে জড়ানোর ইচ্ছা নেই তার দেশের। খবর বিবিসির।

বেশ কয়েকটি বিষয় নিয়ে এ দুই বিশ্ব শক্তির মধ্যে বিরোধ চলছে। নিউইয়র্কে এই বছরের জাতিসংঘের সম্মেলন মূলত ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত হচ্ছে, যেখানে বিশ্বনেতারা আগে থেকে রেকর্ড করে রাখা বক্তব্য সরবরাহ করেছেন।

ফলে জাতিসংঘের বড় অধিবেশনগুলোয় ভূরাজনৈতিক যেসব চিত্র বা ঘটনা দেখা যায়, তা এবার অনুপস্থিত। প্রতিটি সদস্য দেশের একজন করে প্রতিনিধি অধিবেশনে প্রতিনিধিত্ব করছেন। ফলে এক দেশের সঙ্গে অন্য দেশের বাগযুদ্ধের সীমিত সুযোগ রয়েছে।

তবে বরাবরের মতোই প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জাতিসংঘ অধিবেশনে তার বক্তব্যে নিজের সাফল্য তুলে ধরার পাশাপাশি প্রতিপক্ষের প্রতি বিষোদগার করেছেন।

ডোনাল্ড ট্রাম্প তার বক্তব্যে বলেছেন, চীন বিশ্বে করোনার এই মহামারী দেয়ার জন্য অবশ্যই ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর কাছে জবাবদিহি করতে হবে।

ট্রাম্প আরও বলেন, করোনাভাইরাস শুরুর প্রথম দিকে চীন স্থানীয়ভাবে ভ্রমণ বন্ধ করে দিলেও চীন থেকে ফ্লাইট চলাচল চালু রেখে বিশ্বকে সংক্রমিত করেছে।

এমনকি যখন তারা দেশের ভেতর ফ্লাইট বাতিল করেছে এবং নাগরিকদের ঘরের ভেতর আটকে রেখেছে, তখনও তারা তাদের দেশে আমার ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার সমালোচনা করেছে।

করোনাভাইরাস মোকাবেলা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র নির্বাচনের সামনে নিজেই চাপের মধ্যে থাকা ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যেই কয়েকবার বেইজিংয়ের বিরুদ্ধে তথ্য গোপনের অভিযোগ তুলে বলেছেন, তারা ভাইরাসটির ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে পারত। তবে এসব বক্তব্যকে ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছে চীন।

করোনাভাইরাসে যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুর সংখ্যা দুই লাখ ছাড়িয়ে গেছে, যা বিশ্বে সর্বোচ্চ।

শেয়ার করুন