পেলেকে নিয়ে মাতামাতি নেই ভারতে!

প্রকাশিত

ক্রীড়া ডেস্ক : ১৯৭৭ সালে প্রথমবার ভারত সফর করেছিলেন ব্রাজিলের কিংবদন্তী ফুটবলার পেলে। সে সময়ে কসমস ক্লাবে খেলতেন তিনি। ইডেন গার্ডেনে মোহনবাগানের বিপক্ষে খেলতেই কলকাতা সফর করেছিলেন তিনি।

প্রায় ৩৮ বছর পর গতকাল রোববার আবারও ভারতের মাটিতে পা রাখেন ফুটবলের কালো মানিক। এবারও মূল লক্ষ্য ফুটবল। তবে খেলার জন্য নয়; মূলত ইন্ডিয়ান সকার লিগের খেলা দেখার জন্যই কলকাতার আমন্ত্রণে এই সফর করছেন তিনি।

কলকাতার ক্রীড়া সাংবাদিক গৌতম ভট্টাচার্য বিবিসিকে বলেন, এটা খুব অদ্ভুত ব্যাপার পেলের সফর নিয়ে ফুটবল কর্তারা আলোড়িত নন। তাকে নিয়ে ভারতীয় ফুবলের ফেডারেশনের কর্মকর্তাদের মধ্যে তেমন কোনো আগ্রহ দেখা যাচ্ছে না। রাজ্য সংস্থার কর্তারা মনে করছেন, পেলের সঙ্গে দেখা করে ভারতের ফুটবলের জন্য কোনো টিপস নেওয়ার প্রয়োজন নেই।এবারের সফরে ১৯৭৭ সালের মোহনবাগান ফুটবল দলকে সংবর্ধনা দেবেন পেলে। আগামীকাল মঙ্গলবার আটলেটিকো দ্য কলকাতা বনাম কেরেলা ব্ল্যাস্টার্স এফসির খেলার সময় গ্যালারিতে থাকবেন ব্রাজিলের এই কিংবদন্তী ফুটবলার। তার সঙ্গে খেলা দেখার উত্তেজনা কাজ করছে ভারতীয় ফুটবল প্রেমীদের মাঝে। প্রিয় তারকা থাকবেন গ্যালারিতে, তাই ইতোমধ্যে আগামীকালের খেলার সব টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। তবে পেলের আগমনে ভারতের জনসাধারণের মাঝে উন্মাদনা কাজ করলেও অনেকটা নির্জীব দেখা গেছে ভারতীয় ফুটবল কর্তাদের।

তিনি জানান, ফুটবল কর্তাদের মাঝে আগ্রহ না থাকলেও পেলেকে নিয়ে আলোড়িত ভারতের ক্রীড়াপ্রেমী মানুষ। আগামীকাল মঙ্গলবার দর্শক সারিতে বসে সৌরভ গাঙ্গুলির দল আটলেটিকো দ্য কলকাতার খেলা দেখবেন পেলে; ওই ম্যাচের সব টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। মনে হচ্ছে, কলকাতার দর্শকদের মধ্যে নস্টালজিয়া কাজ করছে।

গৌতম ভট্টাচার্য বলেন, ঐতিহাসিকভাবে কলকাতাই ভারতে ফুটবলের তীর্থস্থান। বিদেশের অনেক খেলোয়াড় সকার লিগে খেলছেন।

তিনি বলেন, ফুটবল নিয়ে ভারতীয় ফেডারেশনের কর্মকর্তাদের মধ্যে তেমন কোনো পরিকল্পনা নেই। মূলত আইসিএলের মুখপাত্র নিতা আম্মানির পরিকল্পনাতেই কলকাতা সফর করছেন পেলে। এই পরিকল্পনার অন্যতম কর্ণদার সৌরভ গাঙ্গুলি। কিন্তু ফুটবল কর্তাদের কোনো প্রভাব নেই।

তিনি আরও বলেন, শিল্পপতি এবং কয়েকজন ভারতীয় ক্রিকেট সুপারস্টারের হাত ধরে ভারতে আলোর মুখ দেখছে ফুটবল। তরুণদেরও আগ্রহ বাড়ছে, কারণ আইপিএলের ঢঙে হচ্ছে ম্যাচ, আসছেন বিদেশি খেলোয়াড়রাও।

শেয়ার করুন