বিসর্জনে শেষ হল শারদীয় দুর্গোৎসব

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ শুরুটা ছিল আনন্দের। সাজ সাজ রবে দেবীর অভয়বাণী ধারণ করে শুক্রবার পায়ে হেঁটে, রিকশায় চড়ে, মোটরবাইকে নেচে-গেয়ে এগিয়ে চলে দুর্গাপূজার সমাপনী কার্যক্রম ‘বিজয় শোভাযাত্রা’। পেছনে সারিবদ্ধ ট্রাকে ছিল রাজধানীর ৬০টি মণ্ডপের বর্ণিল প্রতীমা। পথে পথে হাজার মানুষের সাধুবাদ ও কড়া পুলিশি নিরাপত্তা ভীষণ উচ্ছ্বাস নিয়ে এগিয়ে চলে হিন্দু ধর্মালম্বী মানুষেরা।

যানজট মুক্ত নগরীর বিভিন্ন প্রান্ত ঘেসে সোয়া এক ঘণ্টায় পৌঁছে ঐতিহাসিক ওয়াইজ ঘাটে। যেখানে প্রতীমা বিসর্জন দেওয়া হবে। উচ্ছ্বাসের মাত্রা আরও তীব্রতর হয় সেখানেও। উচ্ছ্বাস দেখতে ওয়াইস ঘাটে নামে হাজারও মানুষের ঢল। পর্যায়ক্রমে ঘাটে প্রতীমা নামানোর সময় ঘণ্টা, উলু ধ্বনি ও ঢাকা-ঢোলের আনন্দ-উল্লাসে বিসর্জনস্থল পায় ভিন্ন মাত্রা। এরপরই দেখা যায় ভিন্ন চিত্র। প্রতীমা বিসর্জন দিয়ে ফিরে আসার দৃশ্য শোকাবহ আর প্রতীমা বিসর্জন দিতে যাওয়ার সময় উল্লাসের চিত্র। আনন্দ-উল্লাসের এ সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়ে উপস্থিত দর্শনার্থীদের কড়া নাড়ে এক অন্য চিন্তা। অন্যের বিশ্বাসের প্রতি গভীর শ্রদ্ধাবোধ। এমনই এক চিত্র নগরবাসীকে উপহার দেয় সনাতন ধর্মালম্বীদের সর্ববৃহৎ উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার সমাপনী আয়োজন প্রতীমা বিসর্জনে।

শুক্রবার বিকেলে পানিতে বিসর্জনের সময় যেনো কেনো অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেজন্য সদরঘাট নৌ-পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সদস্যদের ব্যাপক নজরদারি লক্ষ্য করা গেছে। স্পিডবোট ও ওয়াটার রেসকিউ বোটে দলে দলে ভাগ হয়ে তারা বিসর্জন কার্যক্রম এলাকায় সার্বক্ষণিক নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেন। তাদের এ কার্যক্রমে মহানগর পূজা কমিটির সভাপতি জে এল ভৌমিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

মোট ৬০টি মণ্ডপের প্রতিমা বিসর্জন দেওয়ার মধ্য দিয়ে শুক্রবার বাঙালী হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিক ইতি ঘটে। ভক্ত- পূণ্যার্থীদের হৃদয়ে অভয় বার্তা দিয়ে দুর্গতিনাশিনী, মহাশক্তির দেবী দুর্গা ফিরে গেছেন। ভক্তরা চোখের জলে বিদায় জানান মা দুর্গাকে। এরপর শান্তিজল গ্রহণের মধ্য দিয়ে শেষ হয় পাঁচ দিনব্যাপী দুর্গাপূজা। আর এই বিসর্জনের মধ্য দিয়ে দুর্গতিনাশিনী দেবী দূর্গা প্রতিমা থেকে নিরাকার রূপ ধারণ করেন। আসন নেন ভক্তদের হৃদয়ে। বিশ্ব চরাচরকে আসুরিক শক্তির প্রভাব থেকে মুক্ত করেন দেবী দুর্গা।

এর আগে, মণ্ডপে মণ্ডপে প্রতিমা বিসর্জনের প্রস্তুতি শরু হয় শুক্রবার সকাল থেকেই। ঢাকায় প্রতিমা বিসর্জন উপলক্ষে মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটি ও বাংলাদেশ পূজা উদযাপন কমিটির আয়োজনে ‘ধর্ম যার যার উৎসব সবার’ স্লোগানে এক বিজয় শোভাযাত্রা বের করা হয়। ঢাকেশ্বরী মন্দির থেকে এটি শুরু হয় দুপুর ২টা ৫০ মিনিটে। শোভাযাত্রাটি ঢাকেশ্বরী মন্দির হয়ে শহীদ মিনার থেকে দোয়েল চত্বর হয়ে প্রেস ক্লাব ও গুলিস্তান মাজার থেকে বাঁকে মোড় নিয়ে নবাবপুর রোড হয়ে বাংলাবাজার মোড় থেকে ওয়াইজ ঘাটে এসে শেষ হয় বিকাল ৪টা ৩০ মিনিটে।

শোভাযাত্রায় উপস্থিত ছিলেন মহানগর পূজা কমিটির সভাপতি জে এল ভৌমিক, সাধারণ সম্পাদক নারায়ণ শাহা ভৌমিক, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি কাজল দেবনাথ, উপদেষ্টা ড. নীল চন্দ্র ভৌমিক, সাংবাদিক স্বপন সাহাসহ মহানগর পূজা কমিটি ও বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দ। তারপর বিনা স্মৃতি স্নানঘাটে একে একে প্রতিমা নামিয়ে বুড়িগঙ্গার জলে বিসর্জন দেওয়া হয়। নৌকায় চাপিয়ে প্রতিমা বিসর্জনের সময়ও শোনা গেছে ঢাক ঢোলের শব্দ। প্রতিমা বিসর্জন চলে রাত অবধি।

শেয়ার করুন