ব্যাংক নিয়োগ পরীক্ষায় প্রক্সি দিতে এসে আটক ৮

প্রকাশিত

রাজশাহী প্রতিনিধিঃ রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের (রাকাব) সুপারভাইজার পদে নিয়োগ পরীক্ষায় প্রক্সি দেয়ার সময় আটজনকে আটক করেছে র‌্যাব। এর মধ্যে জালিয়াতি চক্রের চার হোতা ও ভুয়া পরীক্ষার্থী রয়েছেন। আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদ করে চার মাইক্রোবাস চালককে ছেড়ে দেয়া হয়।

শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজশাহী র‌্যাব-৫ এর উপ-অধিনায়ক মেজর আব্দুস সালাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বেলা ১১টার দিকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অভিযান চালিয়ে জালিয়াত সিন্ডিকেট পরিচালনাকারী চক্রের চারজন এবং অন্যের হয়ে পরীক্ষায় অংশ নেয়া চারজন ভুয়া পরীক্ষার্থীকে আটক করা হয়।

অন্যের হয়ে পরীক্ষা দেয়ার সময় আটক চার ভুয়া পরীক্ষার্থী হলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলাম শিক্ষা বিভাগের ছাত্র ও কুড়িগ্রামের উলিপুর থানার দুর্গাপুর গ্রামের গাজী রহমানের ছেলে মাইদুল ইসলাম (২৪), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একই বিভাগের ছাত্র ও টাঙ্গাইলের গোপালপুর থানার খামারপাড়া এলাকার গফুর মিয়ার ছেলে সাইম আহমেদ (২৫), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকল্যাণ বিভাগের ছাত্র ও চাঁদপুরের দালাদী গ্রামের জাফর তালুকদারের ছেলে ওসমান গনি (২৫), এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র ও ময়মনসিংহের ভালুকা থানার আংগারগাড়া গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে নুর আলম (২৪)।

সিন্ডিকেট পরিচালনাকারী আটক চারজন হলেন, ঢাকা কলেজের ছাত্র ও নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ থানার পানিয়ালপুকুর এলাকার হাছিম উদ্দিনের ছেলে জাকির হোসেন (২৫), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ও লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী থানার তালুক দুলালী গ্রামের এলাহী রাব্বানীর ছেলে জাকির হোসাইন (২৫), ঠাকুরগাঁও জেলার রানীশংকৈল এলাকার মঞ্জুর রহমানের ছেলে ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আল মামুন (২৭), দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর থানার রিয়াজনগর এলাকার মোফাখারুল ইসলামের ছেলে মোস্তফা কামাল (২৯)।

র‌্যাবের অভিযানে সিন্ডিকেট চক্রের ব্যবহৃত তিনটি মাইক্রোবাস, ১১টি মোবাইল সেট, ১২টি ভুয়া প্রবেশপত্র এবং নগদ এক লাখ ১১ হাজার ৬৬০ টাকা উদ্ধার করা হয়। এছাড়া জাকিরের ব্যবহৃত স্মার্টফোনের মধ্যে ৮০ জন ভুয়া পরীক্ষার্থীর বিবরণ পাওয়া গেছে বলেও জানান মেজর আব্দুস সালাম।

শেয়ার করুন