ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটে গ্রাহক ভোগান্তি চরমে

প্রকাশিত

নিউজ ডেস্ক : করোনাভাইরাসের প্রভাবে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটে চাপ বেড়ে যাওয়ায় বিড়ম্বনায় পড়েছেন গ্রাহকেরা। বেশ কয়েকদিন ধরেই ব্রডব্যান্ড গ্রাহকরা গতি কম পাচ্ছেন। এর মধ্যে শনিবার (১০ এপ্রিল) রাতের ঝড়ে অনেক জায়গায় বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে ইন্টারনেট সংযোগ। ফলে ভোগান্তির মাত্রা আরও বেড়েছে।

এদিকে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (ডিপিডিসি) নগরীর পান্থপথে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগের তার কেটে দেওয়ায় শুরু হয়েছে নতুন বিড়ম্বনা। এতে অন্তত ওই এলাকার পাঁচ হাজার গ্রাহক ইন্টারনেট সংযোগ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন।

জানতে চাইলে রোববার (১২ এপ্রিল) রাতে ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান আইএসপিএবি সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হক বলেন, ‘কোনো নোটিশ ছাড়াই পান্থপথে ডিপিডিসি ইন্টারনেটের তার কেটে দিয়েছে। এতে পাঁচ হাজার গ্রাহক ভোগান্তিতে পড়েছেন। তার কেটে দেওয়ায় শুধু পান্থপথ নয় অনেক এলাকার ব্রডব্যান্ড গ্রাহক ইন্টারনেট ব্যবহার করতে গিয়ে বিড়ম্বনায় পড়েছেন।’

এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘করোনার কারণে ২৫ মার্চের পর থেকেই ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের ব্যবহার বেড়েছে। আগে ১৪০০ জিবিপিএস ব্যবহার হতো, এখন তা বেড়ে ১৭০০ পর্যন্ত হয়েছে। কিন্তু গতি যে খুব একটা কমে গেছে তা নয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা এখন গ্রাহকদের কাছ থেকে বিল তুলতে পারছি না। এই অবস্থা কতদিন চলে তাওতো বলা যাচ্ছে না। বিল না উঠাতে পারলে আমরা আমাদের কর্মচারীদের বেতন দেবো কী করে। এক্ষেত্রে সরকারের সহযোগিতা চাই।

ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট বিড়ম্বনা নিয়ে কাঁঠালবাগান এলাকার বাসিন্দা আপন তারিক বলেন, ‘বাসায় ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট খুব সমস্যা করছে। নেটওয়ার্ক আসছে আর যাচ্ছে। এই মাসের টাকা অগ্রিম দিয়েছি। কিন্তু সমস্যা জানালেও কাজ হয়নি। আজ বলল, এটা নাকি তাদের হেড অফিসের সমস্যা। কাঁঠালবাগানে এই সমস্যা অনেকেরই হচ্ছে।’

তেজগাঁওয়ের শাহীনবাগের বাসিন্দা হিমেল হিমু বলেন, ‘শনিবার ঝড়ের পর থেকেই ইন্টারনেট সমস্যা করছে। পুরো রাত নেটওয়ার্ক ছিল না। সকালে একবার এলেও ফের একই সমস্যা। কয়েকবার জানানো হলেও ঠিক হয়নি। বলছে তার কেটে গেছে। আর লোকবল না থাকায় সেটা নাকি সহজে ঠিকও করা যাচ্ছে না। করোনার এই সময়ে নেটওয়ার্ক না থাকায় খুবই সমস্যায় পড়েছি।’

উত্তরখানের বাসিন্দা তাহমিনা শারমিন বলেন, ‘গত তিন চারদিন ধরে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট খুব সমস্যা করছে। প্রথমদিন প্রায় সারাদিন কাটিয়ে সংযোগ পাই। কিন্তু গতি কম থাকায় বাসায় বসে ঠিকভাবে অফিসের কাজও করতে পারছি না। হাতের কাজ জমে যাচ্ছে। কিন্তু অপারেটররা কোন সমাধান দিচ্ছেন না। ’

শেয়ার করুন