‘ব্লগারদের আচরণ যেন স্বাধীনতার সীমা ছাড়িয়ে না যায়’

নিজস্ব প্রতিবেদক : নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার বলেছেন, ‘ব্লগারদের হত্যা কোনোভাবে গ্রহণযোগ্য নয়। কিন্তু তাদেরও এমন আচরণ করা উচিত নয়, যাতে স্বাধীনতার সীমা ছাড়িয়ে যায়।’

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত ‘নারী নির্যাতন, শিশু হত্যা ও সাম্প্রদায়িক জঙ্গিগোষ্ঠীকে প্রতিহত করুন’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রামেন্দু মজুমদার এ সব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘অর্থনীতির বিবেচনায় দেশ উন্নততর হচ্ছে এ কথা সত্য কিন্তু হতাশার বিষয় হল পাল্লা দিয়ে বাড়ছে সামাজিক অবক্ষয়। কেবল সরকার ও প্রশাসনের দিকে না তাকিয়ে আমাদেরকে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

শনিবার বিকেলে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে অনুষ্ঠিত এ প্রতিবাদ সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে আয়োজক সংগঠনের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ সভাপত্বিত করেন। স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক হাসান আরিফ।

সভায় মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য ডা. সারওয়ার আলী, পথনাটক পরিষদের সভাপতি মান্নান হীরা, জাতীয় কবিতা পরিষদের সভাপতি কবি মুহাম্মদ সামাদ, নাট্যব্যক্তিত্ব ঝুনা চৌধুরী ও বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সেক্রেটারি জেনারেল আকতারুজ্জামান বক্তব্য দেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন আবৃত্তিশিল্পী রফিকুল ইসলাম।

সভাপতির বক্তব্যে গোলাম কুদ্দুছ বলেন, ‘মানুষের মত প্রকাশের স্বাধীনতা আছে তবে কোনো মানুষের স্বাধীনতা অসীম নয়। অপরের স্বাধীনতাও রক্ষা করতে হবে।’

প্রবীর সিকদারের বিষয়ে হাসান আরিফ বলেন, ‘একজন মানুষকে হয়রানি করার অধিকার রাষ্ট্রের নেই। যদি এভাবে একজন সাংবাদিক, সংস্কৃতিকর্মীকে অনৈতিকভাবে আঘাত করা হয় তবে এদেশের যুদ্ধাপরাধীদের বিচার তথা অপশক্তি রোধের যে চেষ্টা চলছে তা কোনোভাবেই সফল হবে না।’

আলোচনা শেষে সাংস্কৃতিক পর্বে সমবেত সংগীত পরিবেশন করে ‘বহ্নিশিখা’। একক আবৃত্তি পরিবেশন করেন শাহাদাৎ হোসেন নিপু, দলীয় আবৃত্তি করেন মুক্তধারা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র্র, শ্রুতিঘর ও সংবৃতা।

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে ৫০ জেলায় এ প্রতিবাদ সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়েছে।