সিসিটিভির আওতায় আসছে গোটা রাজধানী

প্রকাশিত

ডেস্ক প্রতিবেদন: রাজধানীতে জননিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ও অপরাধ দমনে নগরীর প্রবেশ পথ ও বহির্গমন পয়েন্ট ইন্টার সেকশন এবং সকল গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ক্লোজড সার্কিট টেলিভিশন (সিসিটিভি) স্থাপন করা হবে। সরকার রাজধানীতে ২৪ ঘণ্টা নজরদারিতে রাখতে হাই রেজুলেশনের সিসিটিভি স্থাপন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের বরাত দিয়ে বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস) এ তথ্য জানিয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, সরকার নগরীতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করার পদক্ষেপের অংশ হিসেবে সকল প্রবেশ পথ ও বহির্গমন পয়েন্টে সিসিটিভি ক্যামেরা ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। নগরীতে সিসিটিভি ক্যামেরা বসাতে সাতশ’ থেকে আটশ’ কোটি টাকা ব্যয় হবে। এ সংক্রান্ত একটি বৈঠকে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপনের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে এবং এ ব্যাপারে প্রকল্পের জন্য একজন কনসালট্যান্ট নিয়োগ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

মন্ত্রী আরো বলেছেন, সিসিটিভি ক্যামেরা তার অবস্থান থেকে লোকজনের চলাচল শনাক্ত করতে সক্ষম হবে। অপরাধীকে শনাক্ত করার ক্ষেত্রে আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর জন্য সহায়ক হবে। একইসঙ্গে নগরীতে পুলিশি টহল ও তাদের নজরদারি বাড়ানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। নগরীতে কূটনৈতিক জোনের বিভিন্ন পয়েন্টে নিরাপত্তা চেক পোস্ট বসানো হয়েছে।

সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপনের পর ঢাকা সিটি কর্পোরেশন এটি মনিটর করবে বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, গত ২৮ সেপ্টেম্বর সোমবার রাত ৮টার দিকে গুলশান-২ নম্বর কূটনীতিক এলাকার ৯০ নম্বর সড়কে ইতালিয়ান নাগরিক তাভেলা সিজারকে (৫০) গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। হত্যাকাণ্ডের পর আইএস হত্যার দায় স্বীকার করে। তবে এখন পর্যন্ত খুনিদের শনাক্ত করতে পারেনি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কোনো সংস্থা। হত্যাকণ্ডের ঘটনাস্থলে কাছেই সিসিটিভি ক্যামেরা থাকলেও তার ফুটেজে অন্ধকার ছবি আসছে। যে কারণে খুনিদের শনাক্ত করাও কঠিন হয়ে পড়েছে।

শেয়ার করুন