হজ ব্যবস্থাপনায় অনিয়মে ১৭৩ এজেন্সির লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ

সংসদ প্রতিবেদক : হজ যাত্রায় অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনার অভিযোগে ১৭৩টি এজেন্সির লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ করেছে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি। সম্প্রতি ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে বিমান মন্ত্রণালয়কে পাঠানো পৃথক দুই চিঠির একটিতে ১০৪টি এবং আরেকটিতে ৬৯টি এজেন্সির নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে এসব সুপারিশ করা হয়েছে বলে কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খান সাংবাদিকদের জানিয়েছেন। এর আগে ফারুক খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে আরও অংশ নেন কমিটির সদস্য মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, তানভীর ইমাম, কামরুল আশরাফ খান এবং মো. আফতাব উদ্দীন সরকার।

দেশে নিবন্ধিত প্রায় এক হাজার হজ এজেন্সি এবং কয়েক হাজার ট্রাভেল এজেন্সি রয়েছে। লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ করা এজেন্সিগুলোর হজ লাইসেন্স বাতিল করবে ধর্ম মন্ত্রণালয় এবং ট্রাভেল এজেন্সির লাইসেন্স বাতিল করবে বিমান মন্ত্রণালয়।

ফারুক খান জানান, বৈঠকে অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট পরিচালনায় নিয়োজিত নভো এয়ার, রিজেন্ট এয়ার, ইউএস বাংলা ও ইউনাইটেড এয়ার এই চার বেসরকারি কোম্পানির প্রতিনিধিরা অংশ নিয়ে তাদের বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরেন। এ ব্যাপারে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে সমস্যা সমাধানের সুপারিশ করা হয়। বৈঠকে চট্টগ্রাম বিমানবন্দর সম্প্রসারণের কাজ নিয়ে আলোচনার পরে সেখানে নতুন দুটি বোর্ডিয় ব্রিজ নির্মাণের সুপারিশ করা হয়।

এদিকে সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানান হয়েছে, বৈঠকে রূপসী বাংলা হোটেল ও প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলের সংস্কারমূলক কাজ নির্ধারিত সময়েই শেষ হয়ে যাবে বলে জানান হয়। বৈঠকে মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব, বিমানের এমডি, পর্যটন কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান, সিভিল এভিয়েশনের চেয়ারম্যান, প্রাইভেট এয়ারলাইন্স লিমিটেডের চেয়ারম্যান, প্রাইভেট এয়ারলাইন্স লিমিটেডের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।