আজ শুক্রবার, জানুয়ারী ২২, ২০২১ | ৮ মাঘ, ১৪২৭

শিরোনাম

শিক্ষার মান বৃদ্ধির নামে প্রহসন বন্ধ করুন!

প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ২৪, ২০২০


শিক্ষার মান বৃদ্ধির নামে প্রহসন বন্ধ করুন!

রাজিব হোসেন : শিক্ষার মান বৃদ্ধির জন্য রাজধানীর সরকারি ৭টি কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত করা হয়েছিল। কিন্তু সেখানে কি সত্যিই কোন শিক্ষার মান উন্নয়ন হয়েছে? ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কি ৭ কলেজের শিক্ষার মান বৃদ্ধি করার জন্য যথা উপযোক্ত কোন কার্যক্রম হাতে নিয়েছিলো? নাকি বরং,কথিত শিক্ষার মান বৃদ্ধির নামে ৭ কলেজের সুদীর্ঘ ইতিহাস ঐতিহ্য এবং সুনামকে ধ্বংস করার দিকে এগোচ্ছে?
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত অনান্য যে সকল প্রতিষ্ঠান রয়েছে,সঙ্গত কারণেই সকল প্রতিষ্ঠান থেকে ৭ কলেজের শিক্ষার মান নিন্ম মানের আর এটা হওয়াই স্বাভাবিক। অধিভুক্ত অনান্য প্রতিষ্ঠানের দিকে তাকালে আর ৭ কলেজের দিকে তাকালে বিষয়টি সবার চোখেই পড়বে, তাদের শিক্ষা কার্যক্রম কিভাবে চলে আর আমাদের কিভাবে চলে।
তার মাঝে ৭ কলেজের রয়েছে এক বিশাল আবাসন সংকট। অধিভুক্তির ৩ বছরের দারপ্রান্তে পৌঁছেও এ সংকট নিরসনে প্রশাসন কোন সঠিক পরিকল্পনা হাতে নিতে পারে নি। যেখানে সকল পাবলিক ভার্সিটির কথা না হয় বাদ-ই দিলাম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সকল প্রতিষ্ঠানই আবাসিক। তাদের নেই কোন আবাসন সংকট, নেই কোন দিক দিয়ে ভার্সিটির চেয়ে সুযোগ সুবিধার কোন পার্থক্য।
৭কলেজে ২ লক্ষাধিক শিক্ষার্থীদের মধ্যে ৫% শিক্ষার্থীর জন্য আবাসন ব্যবস্থা আছে বলে আমার মনে হয় না। শিক্ষার্থীদের অধিকাংশই আসে গ্রামের মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে এদের বড় অংশ থাকে রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন জায়গায় অস্থায়ী বাসা নিয়ে, অনেকের হয়তো বাসা ভাড়ার টাকা জোগাড় করতে গিয়ে নিজেই কোন একটা চাকরিতে জড়িয়ে যায়। এছাড়া তো তাদের কোন পথ নেই, ঢাকা শহরে থেকে শিক্ষা চালিয়ে যেতে হলে প্রথমে তাদের আবাসন ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে এ দায়িত্ব তো প্রশাসন নেয় নি। যা অনান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় বা অধিভুক্ত প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে প্রায় শতভাগ নিশ্চিত। থাকার ব্যবস্থা থাকলে হয়তো আর সবকিছু বাড়ি থেকে এনে চালিয়ে নিতে পারতো। কিন্তু সে সুযোগ টা এখনে পাচ্ছে না আর এর প্রভাব সম্পূর্ণ পড়ছে রেজাল্টের উপর, শিক্ষার উপর।
একজন শিক্ষার্থী যখন সকল সুযোগ সুবিধা বঞ্চিত হয়ে নিজস্ব একটি সংকটের মাঝে পড়াশোনা করবে তখন তার রেজাল্ট খারাপ হবে এটাই স্বাভাবিক। টিকে থাকার সংগ্রামই যখন মূখ্য, সেখানে পড়াশোনা করে ভালো রেজাল্ট করার সুযোগ কোথায়?
তার মধ্যে সেশন জট, পরীক্ষার ফল প্রকাশে দীর্ঘ অপেক্ষা এসব তো রয়েছেই।
শুধু একদিকে নয় সকল দিক দিয়েই এসব বৈষম্য রয়েছে। এখানে নেই কোন পাবলিক ভার্সিটির মতো শিক্ষার সুযোগ সুবিধা, বিশাল শিক্ষার্থীর তুলনায় শিক্ষকের সংখ্যা অতি নগন্য, নেই তেমন কোন গ্রন্থাগার, নেই ক্লাসের কোন ঠিক ঠিকানা। সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করতে না পরলে শিক্ষার মান কিভাবে উন্নয়ন করবে। শিক্ষার মান বৃদ্ধির জন্য কোন পরিকল্পনাও হাতে নেয়া হয়নি। তাহলে এখান থেকে তারা কিভাবে ভালো রেজাল্ট আশা করে? শিক্ষা কার্যক্রমে তোমার ঢাবির মতো কোন সুযোগ সুবিধা দিবে না। আবার রেজাল্ট আশা করবে বিশ্বমানের,, বাহ্ চমৎকার!
৭ কলেজের প্রতিটা ক্ষেত্রে ভার্সিটির মতো সুযোগ সুবিধা দেন, তাদের মতো করে সমস্ত কার্যক্রম পরিচালনা করেন। দেখেন দেশের অনান্য ৮/১০ বিশ্ববিদ্যালয়ের থেকে শিক্ষায় এগিয়ে যায় কি না।
গাছ লাগাবেন আম গাছ আর খেতে চাইবেন কাঁঠাল,,,হাস্যকর!
তার মধ্যে আবার ঢাবি শিক্ষার্থীদের নিয়মিত আন্দোলন অধিভুক্ত বাতিল চাই। তাদের দাবির বাস্তবায়ন ও লক্ষ্য করা যাচ্ছে, সার্টিফিকেটে অ্যাফিলিয়েট যুক্ত করণ তাও আবার ভিন্ন মার্কে। যেখানে অধিভুক্ত প্রতিষ্ঠানের নাম রয়েছেই সেখানে ভিন্ন ভাবে Affiliated যুক্ত করা কতটুকু যৌক্তিক? ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির অধিভুক্ত কলেজের সার্টিফিকেটে কি Affiliated যুক্ত থাকে? অধিভুক্ত অনান্য প্রতিষ্ঠানের সার্টিফিকেটে কি Affiliated যুক্ত থাকে?
এখানেই শেষ নয় Affiliated যুক্ত করার মাধ্যমে তাদের আন্দোলনের পূর্ণতা পেতে যাচ্ছে এর পর হবে অধিভুক্ত বাতিলের আন্দোলন। বাহ্ এভাবে তারা একের পর এক আন্দোলন চালিয়ে যাবে আর আমরা বিশৃঙ্খলার মধ্যে পড়াশোনা করে ৮ বছরে অনার্স শেষ করবো এটাতো হয় না। অধিভুক্ত বাতিলের দাবি মেনে নিলে তারা বলবে ৭ কলেজ কে ঢাকা থেকে স্থানান্তর করা হোক। আর প্রশাসন এটাই মেনে নিবে এভাবে তো চলতে পারে না। তাদের আন্দোলন সংগ্রামের মাঝে আমরা থাকতে চাই না। আমরা এর সঠিক ব্যবস্থাপনা চাই। সমস্যার দীর্ঘস্থায়ী সমাধান চাই। আমরাও তাদের মতো অধিভুক্ত বাতিল চাই। আমরা আর ঝুলন্ত অবস্থায় থাকতে চাই না। ঢাবি কে বলবো আপনাদের দোলনায় আপনারাই দোলেন,, আমাদেকে নামিয়ে দেন। আমরা স্থায়িত্ব চাই। আপনাদের এইসব ইদুর বিড়াল খেলায় আমরা নেই।
বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে শিক্ষা আমাদের মৌলিক অধিকার এ অধিকারে কেউ হস্তক্ষেপ করলে আমরা তা কখনোই মেনে নিবো না। যদি অধিভুক্ত করে রাখতেই হয় তাহলে আলাদা কমিশন গঠন করে সকল কার্যক্রম পাবলিক ভার্সিটির মতো করে পরিচালনা করতে হবে। তাদের মতো সকল সুযোগ সুবিধা দিতে হবে।
আমরা শরণার্থী হিসেবে এদেশে অবস্থান করছি না। আমরা কেন সিদ্ধান্ত হীনতায় ভুগবো। ভার্সিটির যেমন সুযোগ সুবিধা দেন আমাদেরকেও তেমন সুযোগ সুবিধা দিতে হবে, উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে সকালের সমান অধিকার থাকতে হবে এটা আমাদের মৌলিক অধিকার। পাকিস্তান আমলের মতো করে বৈষম্য এদেশে আর সম্ভব নয়।
৭ কলেজের সকল শিক্ষার্থী ঐক্যবদ্ধ হও অধিকার আদায়ের জন্য কঠোর আন্দোলনের জন্য প্রস্তুত হও। এ দেশে অধিকার তোমাদের কেউ হাতে এসে দিয়ে যাবে না, অদায় করে নিতে হবে।
বিঃদ্রঃ ঐক্যবদ্ধ না হয়ে বিচ্ছিন্ন ভাবে আন্দোলন করে কখনো দাবি আদায় করা সম্ভব নয় আর দাবি গুলোও যৌক্তিক হতে হবে।
লেখক : ইতিহাস বিভাগ, সরকারি তিতুমীর কলেজ।

সুনামগঞ্জে সাংবাদিকদের সাথে ডিসি’র  মতবিনিময়

সুনামগঞ্জে সাংবাদিকদের সাথে ডিসি’র মতবিনিময়

শারীরিক প্রতিবদ্ধকতাকে হার মানিয়ে সফল উদ্যোক্তা মিরসরাইয়ের সাহেদা

শারীরিক প্রতিবদ্ধকতাকে হার মানিয়ে সফল উদ্যোক্তা মিরসরাইয়ের সাহেদা

মিরসরাই পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর ছাত্রনেতা আরমান

মিরসরাই পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর ছাত্রনেতা আরমান

ইসলামী ব্যাংকের মীরহাজীরবাগ চৌরাস্তা উপশাখা উদ্বোধন

ইসলামী ব্যাংকের মীরহাজীরবাগ চৌরাস্তা উপশাখা উদ্বোধন

পতত্নীতলায় খাদ্যের নিরাপদতা শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

পতত্নীতলায় খাদ্যের নিরাপদতা শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

বাগাতিপাড়ায় তিন প্রহরীকে বেঁধে ১১ দোকানে ডাকাতি

বাগাতিপাড়ায় তিন প্রহরীকে বেঁধে ১১ দোকানে ডাকাতি

করোনা মোকাবেলায় আমরাই সেরা : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

করোনা মোকাবেলায় আমরাই সেরা : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

দরকারি লোকরাই আগে টিকা পাবেন : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

দরকারি লোকরাই আগে টিকা পাবেন : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ফেরিতে  উঠতে গিয়ে মাইক্রোবাস নদীতে

ফেরিতে উঠতে গিয়ে মাইক্রোবাস নদীতে

ফুটপাত উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে মিরপুরে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

ফুটপাত উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে মিরপুরে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

কিশোরগঞ্জে ১৪০ পরিবারকে দেয়া হচ্ছে পাকা ঘর

কিশোরগঞ্জে ১৪০ পরিবারকে দেয়া হচ্ছে পাকা ঘর

এশিয়ান ইউনিভার্সিটি’র প্রতিষ্ঠাতা ও উপাচার্যের বড়বোনের ইন্তেকাল

এশিয়ান ইউনিভার্সিটি’র প্রতিষ্ঠাতা ও উপাচার্যের বড়বোনের ইন্তেকাল

২০ লাখ টিকার প্রথম চালান পৌঁছুলো ঢাকায়

২০ লাখ টিকার প্রথম চালান পৌঁছুলো ঢাকায়

করোনার ভ্যাকসিন : ধনীদের প্রয়োজন গরীবের লোভ!

করোনার ভ্যাকসিন : ধনীদের প্রয়োজন গরীবের লোভ!

ঐক্যবদ্ধ হওয়া ছাড়া কোনো শান্তি নেই : বাইডেন

ঐক্যবদ্ধ হওয়া ছাড়া কোনো শান্তি নেই : বাইডেন

শপথ নিলেন বাইডেন

শপথ নিলেন বাইডেন

সপ্তাহে তিনদিন অফিস করেন উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা!

সপ্তাহে তিনদিন অফিস করেন উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা!

মিরসরাইয়ে অগ্নিকান্ডে ছয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও দুই সিএনজি পুড়ে পুড়ে ছাই

মিরসরাইয়ে অগ্নিকান্ডে ছয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও দুই সিএনজি পুড়ে পুড়ে ছাই

মহামারীতে বিশ্বমন্দা এড়াতে পেরেছে বাংলাদেশ : প্রধানমন্ত্রী

মহামারীতে বিশ্বমন্দা এড়াতে পেরেছে বাংলাদেশ : প্রধানমন্ত্রী

রূপনগরে ইসলামী ব্যাংকের সিআরএম উদ্বোধন

রূপনগরে ইসলামী ব্যাংকের সিআরএম উদ্বোধন

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকঃ জিয়াউল হক
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ মোহাম্মদ ছাদেকুর রহমান
প্রকাশকঃ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ

বার্তা বিভাগ মোবাইল: +88 016 01 22 45 45
বাণিজ্য বিভাগ মোবাইল: +88 017 88 445 222

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়:
৩/২, আউটার সার্কুলার রোড, প্রশান্তি হাইটস, স্যুট # এ-৪ (পঞ্চম তলা), রাজারবাগ, ঢাকা-১২১৭ থেকে প্রকাশিত।

ই-মেইল: muktomonnews24@gmail.com
ই-মেইল: muktomontv@gmail.com


© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | মুক্তমন এসএসএস লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান | About Us | Privacy Policy