আজ বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ২৮, ২০২১ | ১৪ মাঘ, ১৪২৭

শিরোনাম

আলোচনায় সহপাঠী ধর্ষণ, হত্যা ও সাংবাদিকতা

প্রকাশিত: শনিবার, জানুয়ারী ৯, ২০২১


আলোচনায় সহপাঠী ধর্ষণ, হত্যা ও সাংবাদিকতা

মুক্তমন রিপোর্ট : বিকৃত যৌনাচারের শিকার হয়ে রাজধানীর কলাবাগনে মাস্টারমাইন্ড স্কুলের ‘ও’ লেভেলের ১৭ বছরের এক ছাত্রীকে ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় নিহতের বয়স বাড়িয়ে ধর্ষক সহপাঠীর শাস্তি কমানোর ‘অপতৎপরতা’সহ নানা ইস্যুতে ঘটনাটি এখন টক অব দ্য কান্ট্রি।

তবে সবচাইতে বেশি আলোচিত হচ্ছে সংবাদটি নিয়ে সংবাদ প্রকাশকে ঘিরে। অধিকাংশ সংবাদমাধ্যম অভিযুক্ত ছেলেটিরও ছবিসহ পরিচয় প্রকাশ করেছে। পাশাপাশি ধর্ষণে নিহত মেয়েটির নাম, ঠিকানা এমনকি তার পরিবারের বিস্তারিত পরিচয় প্রকাশ করা হয়েছে। শুধু সংবাদপত্র বা অনলাইন নয়, টেলিভিশনগুলোতেও এক্ষেত্রে আইনের ব্যত্যয় ঘটানো হয়েছে। তাই দেশের প্রচলিত আইন ও সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশনা অধিকাংশ সংবাদ মাধ্যমই অগ্রাহ্য করছে।

সুপ্রীম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী শাহদীন মালিক তার অনুভুতি প্রকাশ করে জানিয়েছেন, এটাকে আমি দায়িত্বহীন সাংবাদিকতা বলব। শুধু দায়িত্বহীন নয়, হলুদ সাংবাদিকতাও বলা যায়। অনেকেই তো এটা মানছে না। কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থাতো নেয়া হচ্ছে না। মেয়েটি মারা গেলেও তার পরিচয় বা ছবি প্রকাশ করা যাবে না।’

অথচ বাংলাদেশের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন-২০০০ এর ১৪ (১) ধারায় সংবাদমাধ্যমে নির্যাতনের শিকার নারী ও শিশুর পরিচয় প্রকাশের ব্যাপারে বাধা-নিষেধ সম্পর্কে বিস্তারিত বলা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, ‘‘এই আইনে অপরাধের শিকার হয়েছেন এইরূপ নারী বা শিশুর ব্যাপারে সংঘটিত অপরাধ বা তৎসম্পর্কিত আইনগত কার্যধারার সংবাদ বা তথ্য বা নাম-ঠিকানা বা অন্যবিধ তথ্য কোন সংবাদপত্রে বা অন্য কোন সংবাদমাধ্যমে এমনভাবে প্রকাশ বা পরিবেশন করা যাইবে যাহাতে উক্ত নারী বা শিশুর পরিচয় প্রকাশ না পায়৷ (২) উপ-ধারা (১) এর বিধান লংঘন করা হইলে উক্ত লংঘনের জন্য দায়ি ব্যক্তি বা ব্যক্তিবর্গের প্রত্যেকে অনধিক দুই বছর কারাদণ্ড বা অনুর্ধ্ব এক লাখ টাকা অর্থদণ্ডে বা উভয়দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন।’’

আদালত কর্তৃক অভিযুক্ত হওয়ার আগে কী প্রাথমিকভাবে অভিযুক্ত ছেলেটির ছবি বা পরিচয় প্রকাশ করা যায়? জবাবে জনাব মালিক বলেন, ‘‘না, এখানেও আদালত কর্তৃক দণ্ডিত না হওয়া পর্যন্ত অভিযুক্ত ছেলেটির পরিচয় বা ছবি প্রকাশ করা যাবে না। ছেলেটি যদি নাবালক অর্থাৎ ১৮ বছরের নিচে হয় তাহলেতো প্রকাশ করা যাবেই না। তবে ১৮ বছরের বেশি হলেও তার পরিচয় বা ছবি প্রকাশ না করাই ভালো। আর এখন তো বিচারকরাও সংবাদ মাধ্যমে রিপোর্ট দেখে প্রভাবিত হন। যেটা কোনভাবেই উচিৎ না বলেই আমি মনে করি।’’

অনেক সংবাদমাধ্যম কেন আইন মানছে না? এটা না মানলে কী ধরনের ব্যবস্থা হতে পারে? জানতে চাইলে দৈনিক আমাদের অর্থনীতির প্রধান সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খান বলেন, ‘‘আমাদের সংবাদমাধ্যমে এখন জানাশোনা লোকের চেয়ে না বোঝা মানুষের সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে। ফলে তাদের অনেকই জানেন না, এই ছবি ও পরিচয় প্রকাশ করে তারা ভুল করেছেন। এমনকি এগুলো বিশ্লেষণ করে ভুলটা ধরিয়ে দেওয়ার জন্য কোন সংগঠনও নেই।  আমি মনে করি, আদালত কর্তৃক কেউ অভিযুক্ত প্রমাণ হওয়ার আগে তারও পরিচয় বা ছবি প্রকাশ করা ঠিক নয়। পরিচয় প্রকাশ না করেও অনেক সময় বর্ণনার মধ্যে এমনভাবে লেখা যায় যাতে মানুষ অভিযুক্ত সম্পর্কে বুঝতে পারে। শুধু তাই না, সরকারি কোন অফিসের বা কোন অফিসারের দুর্নীতি সম্পর্কে তার নাম প্রকাশ না করেও লেখা যায়। এমনভাবে লিখতে হবে যাতে তদন্তকারীরা খুব সহজেই তার কাছে পৌঁছাতে পারে। কিন্তু সংবাদমাধ্যমে এগুলো বলা বা দেখার লোক দিন দিন কমে যাচ্ছে।’’

এর আগে  ৭ জানুয়ারি রাতে  তাদের জড়িত সন্দেহে তাদের আটক করেছিল পুলিশ। ফরেনসিক পরীক্ষায় বিকৃত যৌনাচারের শিকার ছিলেন আনুশকা, রক্তক্ষরণে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, গত ৭ জানুয়ারি সকাল আনুমানিক সাড়ে ৮টার দিকে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা মা কর্মস্থলের উদ্দেশে বাসা থেকে বের হয়ে যান। এর এক ঘণ্টা পরে তার বাবাও ব্যবসায়িক কাজে বাসা থেকে বের হন। দুপুর পৌনে ১২টার দিকে ওই শিক্ষার্থী তার মাকে ফোন করে কোচিং থেকে পড়ালেখার পেপার্স আনার কথা বলে বাসা থেকে বের হয়েছিলেন।

মামলার একমাত্র আসামি ‘ও’ লেভেল পড়ুয়া শিক্ষার্থী দুপুর আনুমানিক ১টা ১৮ মিনিটে ফোন করে ওই শিক্ষার্থীর মাকে জানান, মেয়েটি তার বাসায় গিয়েছিলেন। হঠাৎ অচেতন হয়ে পড়ায় তাকে আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেওয়া হয়েছে। অফিস থেকে বের হয়ে আনুমানিক দুপুর ১টা ৫২ মিনিটে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর মা হাসপাতালে পৌঁছেন। হাসপাতালের কর্মচারীদের মাধ্যমে তিনি জানতে পারেন, আসামি তার কলাবাগান ডলফিন গলির বাসায় ডেকে নিয়ে মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। প্রচুর রক্তক্ষরণের কারণে অচেতন হয়ে পড়লে বিষয়টি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য আসামি নিজেই তাকে আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতালে নিয়ে যান।

নারীকে অধিকার প্রদানে ইসলামের অবস্থান

নারীকে অধিকার প্রদানে ইসলামের অবস্থান

সুবিধাবঞ্চিতদের পাশে তারুণ্যের প্রচেষ্টা ফাউন্ডেশন

সুবিধাবঞ্চিতদের পাশে তারুণ্যের প্রচেষ্টা ফাউন্ডেশন

টিকাদান কর্মসূচির সফলতায় আন্তরিকতার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

টিকাদান কর্মসূচির সফলতায় আন্তরিকতার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

জট খুললো ৪০ তম বিসিএস পরীক্ষার

জট খুললো ৪০ তম বিসিএস পরীক্ষার

এশিয়ান ইউনিভার্সিটি’র উপাচার্যের জন্মদিনে দোয়া

এশিয়ান ইউনিভার্সিটি’র উপাচার্যের জন্মদিনে দোয়া

মানব সম্পদ উন্নয়নে উচ্চ শিক্ষার ভূমিকা

মানব সম্পদ উন্নয়নে উচ্চ শিক্ষার ভূমিকা

হিঙ্গুলী ইউনিয়ন এ ক্রিকেট ইভেন্ট ফাইনাল সম্পন্ন

হিঙ্গুলী ইউনিয়ন এ ক্রিকেট ইভেন্ট ফাইনাল সম্পন্ন

সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আজিজুল হক আর নেই

সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আজিজুল হক আর নেই

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ও প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড সমঝোতা চুক্তি

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ও প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড সমঝোতা চুক্তি

২৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বছর পেরিয়ে পায়নি বিজয় ফুল উৎসবের সরকারি অর্থ

২৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বছর পেরিয়ে পায়নি বিজয় ফুল উৎসবের সরকারি অর্থ

আজিজ ব্রিক ফিল্ড এর হুমকির মুখে কয়েকটি গ্রাম

আজিজ ব্রিক ফিল্ড এর হুমকির মুখে কয়েকটি গ্রাম

কোনোভাবেই মানা হচ্ছে না নদী খননের নিয়মনীতি

কোনোভাবেই মানা হচ্ছে না নদী খননের নিয়মনীতি

ধানের দাম বেশি থাকায় কৃষকদের মুখে তৃপ্তির হাসি

ধানের দাম বেশি থাকায় কৃষকদের মুখে তৃপ্তির হাসি

পাহাড়তলীর অবহেলিত মানুষের পাশে থাকতে চান ওয়াসিম

পাহাড়তলীর অবহেলিত মানুষের পাশে থাকতে চান ওয়াসিম

নরসিংদীর মেয়ে ফারাহ বাইডেন প্রশাসনে

নরসিংদীর মেয়ে ফারাহ বাইডেন প্রশাসনে

৭০০০ কপি গাছ নিয়ে বিপাকে কৃষক

৭০০০ কপি গাছ নিয়ে বিপাকে কৃষক

ভারমুক্ত হলেন আমিনুল হক বাদল

ভারমুক্ত হলেন আমিনুল হক বাদল

এরশাদবিরোধী আন্দোলনের মতো করে কর্মসূচি : মান্না

এরশাদবিরোধী আন্দোলনের মতো করে কর্মসূচি : মান্না

ঢাকায় ছুরিকাঘাতে নিহতের পরিচয় পাওয়া গেছে

ঢাকায় ছুরিকাঘাতে নিহতের পরিচয় পাওয়া গেছে

আসলেই কি নতুন ভবন ও নান্দনিক পার্ক পাচ্ছে তিতুমীর ?

আসলেই কি নতুন ভবন ও নান্দনিক পার্ক পাচ্ছে তিতুমীর ?

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকঃ জিয়াউল হক
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ মোহাম্মদ ছাদেকুর রহমান
প্রকাশকঃ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ

বার্তা বিভাগ মোবাইল: +88 016 01 22 45 45
বাণিজ্য বিভাগ মোবাইল: +88 017 88 445 222

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়:
৩/২, আউটার সার্কুলার রোড, প্রশান্তি হাইটস, স্যুট # এ-৪ (পঞ্চম তলা), রাজারবাগ, ঢাকা-১২১৭ থেকে প্রকাশিত।

ই-মেইল: muktomonnews24@gmail.com
ই-মেইল: muktomontv@gmail.com


© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | মুক্তমন এসএসএস লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান | About Us | Privacy Policy